সমাজসেবা অধিদফতর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্র :

 

এতিম কিংবা প্রতিবন্ধী, তারা সমাজের করুনার পাত্র বা বোঝা নয়। উপযুক্ত প্রশিক্ষণ পেলে এই মানুষগুলোও স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি জাতীয় অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে অবদান রাখতে পারে। এরই ধারাবাহিকতায় ২০০৫-২০০৬ অর্থবছরে “এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্র” প্রতিষ্ঠা করে  সমাজসেবা অধিদফতর। এসব কেন্দ্রে ২০১৩-২০১৪ অর্থবছর থেকে ১৫ থেকে ২৫ বছর বয়সি এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েরা সময়োপযোগী বিভিন্ন ট্রেডে কারিগরি প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে কর্মসংস্থান ও পুনর্বাসন হওয়ার সুযোগ লাভ করছে। ফলে তারা সমাজ ও পরিবারের বোঝা ও করুনার পাত্র না হয়ে নিজেরাই স্বাবলম্বী হচ্ছে এবং জাতীয় অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে অবদান রাখতে সক্ষম হচ্ছে। প্রশিক্ষণার্থীদের চাকরি ও স্ব-কর্মসংস্থানের মাধ্যমে সমাজে পুনর্বাসন করার লক্ষ্যে বর্তমানে দেশের ০৬ বিভাগে ০৬টি নিম্নবর্ণিত কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।

 

ক্রমিক নং

কেন্দ্রের নাম/ ঠিকানা

আসন সংখ্যা

যোগাযোগ /ই-মেইলঃ

১.

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, শিবগঞ্জ,বগুড়া

১০০

dd.vtcodb.bogra@dss.gov.bd

 

২.

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, আশাশুনি, সাতক্ষীরা

১০০

dd.vtcodb.satkhira@dss.gov.bd

 

৩.

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, সদর, পটুয়াখালী

১০০

dd.vtcodb.patuakhali@dss.gov.bd

 

৪.

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, সদর, মৌলভীবাজার

১০০

dd.vtcodb.moulvibazar@dss.gov.bd

 

৫.

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, শিবচর, মাদারীপুর

১০০

dd.vtcodb.madaripur@dss.gov.bd

 

৬.

এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, দাউদকান্দি, কুমিল্লা

১০০

dd.vtcodb.comilla@dss.gov.bd

 

 

 লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য :

 

১. ১৫-২৫ বছর বয়সি এতিম ও প্রতিবন্ধীদের বিদ্যমান চাহিদা অনুযায়ী প্রশিক্ষণ প্রদানপূর্বক দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর। 

২. এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের মধ্যে যারা লেখাপড়ায় অনগ্রসর তাদেরকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে কর্মমুখী প্রশিক্ষণ প্রদান।  

৩. প্রশিক্ষণার্থীদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

৪. সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড ও খেলাধুলার মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থীদের দৈহিক ও মানসিক উৎকর্ষ সাধনে সহায়তা করা। 

৫. সাংবিধানিক অঙ্গীকার , শিশু আইন এবং জাতিসংঘ ঘোষিত শিশু অধিকার সনদ অনুযায়ী প্রশিক্ষণার্থী এতিম ও প্রতিবন্ধীদের পরিপূর্ণ বিকাশের সুযোগ প্রদান।

৬. কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি এবং তাদের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা ভিত্তিক উপার্জনমূখী কাজে পুঁজি সরবরাহের জন্য সহজ শর্তে সুদমুক্ত ঋণ প্রদান এবং প্রয়োজনে অনুদানের মাধ্যমে পুনর্বাসনের ব্যবস্থাকরণ: পুজি সংস্থানের জন্য স্থানীয় রিসোর্সকে গুরুত্ব প্রদান ।

৭. এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের যুগোপযোগী বৃত্তিমূলক কারিগরি প্রশিক্ষণ প্রদান করে আত্মনির্ভরশীল  হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে সমাজের মেইনস্ট্রীমে (মূল স্রোতে) অন্তর্ভূক্ত করে দারিদ্র্য বিমোচন করা এবং যোগ্যতানুসারে বিদেশে কর্মসংস্থানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাকরণ।

 

 লক্ষ্যভুক্ত জনগোষ্ঠী:

 

সমাজসেবা অধিদফতরাধীন সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বসবাসরত ১৫-২৫ বছর বয়সী এতিম ও  প্রতিবন্ধী  এবং ক্যাচমেন্ট এরিয়ার ১৫-২৫ বছর বয়সী অনিবাসী এতিম/দুঃস্থ ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়ে।  

 

প্রশিক্ষণ কোর্সের  বিবরণ:

 

কেন্দ্রের প্রশিক্ষণ মডিউল অনুযায়ী নিম্নবর্ণিত ট্রেডে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।

 

ক্রমিক নং

ট্রেড/অকুপেশনের নাম

ছেলে/মেয়ে/উভয়

যোগ্যতা

ক. ফিটার খ. ওয়েল্ডার

গ. অটোমোবাইল

ছেলে

এস এস সি

ড্রেস মেকিং ও টেইলারিং

ছেলে

জে এস সি

ক. এ্যাম্ব্রয়ডারী 

খ. জুট ব্রাগ অ্যান্ড বক্স মেকিং,

গ. ব্লক বাটিক অ্যান্ড স্ক্রীন  প্রিন্টিং,

ঘ. বিউটিফিকেশন

ঙ. হেয়ার কাটিং

ছেলে

জে এস সি

জে এস সি

জে এস সি

এস এস সি

জে এস সি

 উড ওয়ার্কস ও উড কার্ভিং

 

জে এস সি

ক. আইটি সাপোর্ট 

খ. গ্রাফিক্স ডিজাইন

 মেয়ে

১. এইচ এস সি

২.কম্পিইটারে সাধারণ জ্ঞান আবশ্যক

ক. রেডিও অ্যান্ড টিভি সার্ভিসিং

খ. ইলেকট্রিক্যাল ইন্সটলেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স গ. ইলেকট্রিক্যাল ইন্সটলেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স ( সিভিল কন্সট্রাকশন) ঘ. লিফট মেইনটেন্যান্স

উভয় 

এস এস সি

পশু ও হাঁসমুরগী পালন

মেয়ে

জে এস সি

ক. কম্পিউটার এ্যাপ্লিকেশন 

খ. মোবাইল ফোন সার্ভিসিং

গ. কমার্শিয়াল আর্টিষ্ট

ঘ. কার ড্রাইভিং

মেয়ে

এস এস সি

 

 

ভর্তির যোগ্যতা:

 

১. বিভিন্ন জেলার সরকারি শিশু পরিবার/প্রতিষ্ঠানের লেখাপড়ায় অনগ্রসর নিবাসিদের মধ্য থেকে প্রতি বছর  প্রশিক্ষণার্থী বাছাইপূর্বক কেন্দ্রে আবাসিক নিবাসি হিসেবে মনোনয়ন দেয়া হবে। এছাড়া প্রয়োজনীয় যোগ্যতা সম্পন্ন অনিবাসী অস্বচ্ছল এতিম/দুঃস্থ ছেলেমেয়ে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে। 

২. প্রশিক্ষণার্থী নিবাসীর বয়সসীমা সর্বনিম্ন ১৫ বৎসর এবং সর্ব্বোচ্চ ২৫ বৎসর হতে হবে।

৩. সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক পরিচালিত সরকারি শিশু পরিবার ও প্রতিবন্ধী সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের নিবাসিরা অগ্রাধিকার পাবে;

৪. প্রশিক্ষণার্থী নিবাসিদের নূন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণী পাশ হতে হবে। প্রয়োজনবোধে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল করা যেতে পারে;

৫. ভর্তি ইচ্ছুক প্রার্থীদের নির্ধারিত ভর্তি ফরমের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র প্রধান বরাবর আবেদন  করতে হবে। কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ বহুল প্রচারিত দৈনিক পত্রিকা, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রচার, স্থানীয় টিভি চ্যানেলে নির্ধারিত সময়ে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রচার করবেন।

৬. সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র প্রধান ভর্তি কমিটির মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থী ভর্তির আনুষ্ঠানিকতা  চূড়ান্ত করবেন ;

৭. ভর্তিকৃত প্রশিক্ষণার্থীদেরকে কেন্দ্রের আইন শৃঙ্খলা ও নিয়ম-কানুন যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে;

৮.  যদি কেউ নিয়ম-শৃঙ্খলা পরিপন্থী কোন কাজ করে, সেক্ষেত্রে তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থাসহ অন্যান্য শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে;

৯. প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীর জন্য একটি ব্যক্তিগত নথি এবং কেইস হিস্টরি সংরক্ষণ করতে হবে ও

১০. প্রতিবন্ধী প্রশিক্ষণার্থীর অবশ্যই প্রতিবন্ধী নিবন্ধন থাকতে হবে। এতিমদের ক্ষেত্রে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ( নূন্যতম ইউপি চেয়ারম্যান) এতিম/দুঃস্থ হিসেবে প্রত্যয়ন করবেন। 

 

 

আবাসিক  প্রশিক্ষণার্থীদের  সুযোগ সুবিধা:

 

১. প্রশিক্ষণের মেয়াদকাল পর্যন্ত বিনামূল্যে হোস্টেলে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা।

২. বিনামূল্যে প্রশিক্ষণার্থীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা।

৩. খেলাধুলা ও চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা।

৫. পাঠাগারে বইপত্র পড়ার সুযোগ সুবিধা। 

৬. প্রশিক্ষণার্থীদের প্রতিষ্ঠানে অবস্থানের মেয়াদ কোর্স প্রতি  ৬ মাস ( প্রয়োজনে কেন্দ্র ব্যবস্থাপনা কমিটি অনুমোদনক্রমে একই কোর্সে ৬ মাস সময় বৃদ্ধি করা যাবে।

৭. প্রযোজ্য উৎসব সমূহে নতুন পোষাক প্রদান।


 

সংশ্লিষ্ট আইন/বিধি/ নীতিমালা:



১.  এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের বাস্তবায়ন নীতিমালা-২০১৩

২. শিশু আইন ২০১৩
 

 

বিস্তারিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ:



০১      জেনারেল ম্যানেজার (উপপরিচালক)                

০২      সহকারী  জেনারেল ম্যানেজার (সহকারী পরিচালক)          


 

জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র:

 

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আতœনির্ভরশীল করে গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে ১৯৭৮ সালে ইআরসিপিএইচ এর অভ্যন্তরে এ কেন্দ্রটি চালু করা হয়েছে। আবাসিক সুবিধাসম্পন্ন এ প্রতিষ্ঠানে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিভিন্ন প্রকার কারিগরী প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়ে থাকে, অনুমোদিত আসন সংখ্যা ৫০, বর্তমান নিবাসীর সংখ্যা ৮। এ পর্যন্ত এ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে পুনর্বাসিতের সংখ্যা ৭১২। এ প্রতিষ্ঠান থেকে নিম্নবর্ণিত সেবাসমূহ প্রদান করা হয় :

 

প্রতিবন্ধীদের আবাসন, ভরণপোষণ, চিকিৎসাসেবা প্রদান;
বাঁশ ও বেতের কাজের প্রশিক্ষণ (৬ মাস মেয়াদী) ও হাঁস-মুরগী প্রতিপালন এবং চলাচলের উপর প্রশিক্ষণ (৬ মাস মেয়াদী) প্রদান;
খেলাধুলা ও চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা;
কর্মসংস্থান ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা;
প্রশিক্ষণ শেষে ৪০০০ টাকা হারে পুনর্বাসন ভাতা প্রদান;
বেসরকারি ও সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকুরি প্রাপ্তিতে সহযোগিতা; এবং
আবাসন ও প্রতিপালন।

 

শারীরিক প্রতিবন্ধীদের বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র:

 

১৯৭৮ সালে বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী ও শারীরিক প্রতিবন্ধী যুবকদেরকে বিভিন্ন প্রকার কারিগরী প্রশিক্ষণ দেওয়ার উদ্দেশ্যে গাজীপুর জেলার টঙ্গীতে কেন্দ্রটি চালু করা হয়। এ প্রতিষ্ঠানে সফলভাবে প্রশিক্ষণ সমাপ্তির পর পুনর্বাসনের উদ্দেশ্যে প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীকে ৪,০০০ টাকা হারে পুনর্বাসন অনুদান প্রদান করা হয়। এ প্রতিষ্ঠানে অনুমোদিত আসন সংখ্যা ৮৫, বর্তমান নিবাসীর সংখ্যা ৫২।  এ পর্যন্ত পুনর্বাসিতের সংখ্যা ২৮৮৪। এ প্রতিষ্ঠান থেকে নিম্নবর্ণিত সেবাসমূহ প্রদান করা হয় :
 
প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের আবাসন, ভরণপোষণ, চিকিৎসাসেবা প্রদান;
বিভিন্ন ধরনের প্রতিবন্ধী ব্যক্তির স¦ল্পমেয়াদি ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়, যেমন-ম্যাকানিক্যাল ওয়ার্কশপ- ১বছর মেয়াদি (আসন সংখ্যা-৩০), কাঠের কাজ- ১ বছর মেয়াদি (আসন সংখ্যা-১০), টেইলারিং- ১বছর মেয়াদি (আসন সংখ্যা-২৫), হাঁস-মুরগি পালন প্রশিক্ষণ- ০৬ মাস মেয়াদি (আসন সংখ্যা-১০) এবং নার্সারী প্রশিক্ষণ- ০৬ মাস মেয়াদি (আসন সংখ্যা-১০);
খেলাধুলা, চিত্তবিনোদন ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা;
কর্মসংস্থান ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা;
প্রশিক্ষণ শেষে ৪০০০ টাকা হারে পুনর্বাসন ভাতা প্রদান;
পদ খালি সাপেক্ষে কেন্দ্রে চাকুরি প্রদান; এবং
বেসরকারি ও সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকুরি প্রাপ্তিতে সহযোগিতা।

 

 

শারীরিক প্রতিবন্ধীদের গ্রামীণ পুনর্বাসন উপকেন্দ্র:

বাক-শ্রবণ ও শারীরিক প্রতিবন্ধী যুবকদেরকে বিভিন্ন প্রকার কারিগরী প্রশিক্ষণ দেওয়ার উদ্দেশ্যে বাগেরহাট জেলার ফকিরহাটে ১৯৭৮ সালে শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের গ্রামীণ পুনর্বাসন উপকেন্দ্র নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠানে সফলভাবে প্রশিক্ষণ সমাপ্তির পর পুনর্বাসনের উদ্দেশ্যে প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীকে ৪,০০০ টাকা হারে পুনর্বাসন অনুদান প্রদান করা হয়। এ প্রতিষ্ঠানে অনুমোদিত আসন সংখ্যা ৩০, বর্তমান নিবাসীর সংখ্যা ১০ এবং এ পর্যন্ত পুনর্বাসিতের সংখ্যা ৩৩৯। এ প্রতিষ্ঠান থেকে নিম্নবর্ণিত সেবাসমূহ প্রদান করা হয় :

প্রতিবন্ধীদের আবাসন, ভরণপোষণ, চিকিৎসাসেবা প্রদান;
বিভিন্ন ধরনের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের স¦ল্পমেয়াদী ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়, যেমন- ম্যাকানিক্যাল ওয়ার্কশপ- ১বছর মেয়াদি (আসন সংখ্যা-১০), টেইলারিং- ১বছর মেয়াদি (আসন সংখ্যা-১০), হাঁস-মুরগি পালন প্রশিক্ষণ- ১বছর মেয়াদি (আসন সংখ্যা-১০)।
খেলাধুলা, চিত্তবিনোদন ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা;
প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কর্মসংস্থান ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা;
প্রশিক্ষণ শেষে ৪০০০ টাকা হারে পুনর্বাসন ভাতা প্রদান;
পদ খালি সাপেক্ষে কেন্দ্রে চাকুির প্রদান; এবং
বেসরকারি ও সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকুরি প্রাপ্তিতে সহযোগিতা।

 


Share with :

Facebook Facebook